বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে চারটি ম্যাচ ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরের মধ্যে খেলে ফেলেছিল বাংলাদেশ। আফগানিস্তান, কাতার, ভারত ও ওমানের বিপক্ষে এই চারটি ম্যাচ থেকে জেমি ডে’র দলের অর্জন ১ পয়েন্ট। এখন অপেক্ষা ফিরতি পর্বের বাকি চারটি ম্যাচের।

ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রূপুর কাছে রিপোর্ট করেন তাঁরা। করোনার কারণে গর্ত মার্চ মাসেই পিছিয়ে যায় এ ম্যাচগুলো। মার্চেই কাতারের বিপক্ষে দোহায় ্ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে দুটি ম্যাচ খেলার কথা ছিল। জুনে নির্ধারিত ছিল ঘরের মাঠে ভারত ্ও দোহার বিপক্ষে ম্যাচ। করোনার প্রকোপে সারা দুনিয়ায় খেলাধুলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় খেলোয়াড়েরাও ছিলেন ঘরবন্দী।

গাজীপুরের সারাহ রিসোর্টে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বের বাকি ম্যাচগুলোকে সামনে রেখে শুরু হবে আবাসিক ক্যাম্প। বাকি চারটি ম্যাচের জন্য আবাসিক ক্যাম্প হবে গাজীপুরের সারাহ রিসোর্টে। সেটি শুরু হচ্ছে আজ থেকেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তিন ধাপে সেখানে যাবেন খেলোয়াড়েরা। প্রাথমিক ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ৩৬ ফুটবলারদের সবাইকে বাফুফে করোনা পরীক্ষা করাবে।

আজ রিপোর্ট করা সকলেই নিজ উদ্যোগে কোভিড–১৯ পরীক্ষা করিয়েছেন। বাফুফের তত্ত্বাবধানে হবে আরেক দফা পরীক্ষা। ইংলিশ কোচ জেমি ডে অবশ্য এখনো ইংল্যান্ডেই আছেন। ডেনমার্কে আছেন অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। নতুন ডাক পাওয়া ফিনিশ বংশোদ্ভুত তারিক কাজীও আপাতত যোগ দিতে পারছেন না ক্যাম্পে। খুব শিগগিরই দলের সঙ্গে যোগ দেবেন তাঁরা। বিশ্বনাথ ঘোষের করোনা পজিটিভ আসায় তিনি আপাতত বিশ্রামেই থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *